অন্টলজিঃ খায় না মাথায় দেয়

    Md Abul Bashar
    By Md Abul Bashar

    imageওয়ার্ড ওয়াইড ওয়েভ (WWW), এই সময়ে সবচেয়ে বড় এবং সবচেয়ে ব্যবহৃত তথ্য ভান্ডার। সমস্যা হচ্ছে, ওয়েবের অধিকাংশ ডকুমেন্ট শুধু মানুষ (পড়ে) বুঝতে পারে কিন্তু মেশিন বুঝতে পারে না। ভবিষ্যতের ওয়েব হবে এমন যা মানুষের পাশাপাশি মেশিনও বুঝতে পারবে। এতে করে, আমরা যেসব কাজ নিজে করি, যেমন-ওয়েব থেকে কোন তথ্য খুজে বের করা, প্রয়োজনীয় তথ্য একসাথ করা, বিভিন্ন তথ্যের মধ্যে তুলনা করা, সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা, ইত্যাদি-মেশিন আমাদের হয়ে নিজে করে দিবে। এই উদ্দেশ্যে, ওয়েবে তথ্যকে (web content) অন্টলজি দিয়ে উপস্থাপন করার জন্য ওয়ার্ড ওয়াইড ওয়েভ কন্সর্টিয়াম (WWW consortium) সুপারিশ করেছে।

    অন্টলজি প্রথম ফিলোসফিতে আলোচিত হলেও, বর্তমানে আর্টিফিশিয়াল ইন্টিলিজেন্স এবং নলেজ ইঞ্জিনিয়ারিং তা অভিযোজন করা হয়েছে এবং ব্যাপকহারে ব্যবহৃত হচ্ছে। এই ক্ষেত্রে, অন্টলজি হচ্ছে কোন ডোমেইন নলেজ উপস্থাপন করার একটি ফরমাল মডল যা ঐ ডোমেইনের অনুসঙ্গিক শব্দতালিকা, শব্দার্থের বিবরণী, ও ডোমেইনের একটি বিমূর্ত ধারণা প্রকাশ করে। বাস্তব জীবনে, ই-সায়েন্স, ই-কমার্স, মেডিকেল ইনফরমেটিক্স, বায়ো-ইনফরমেটিক্স এবং সেমান্টিক ওয়েবে অন্টলজি ব্যবহৃত হয়। বিশেষ করে, ওয়েব সার্স, ইন্টিলিজেন্ট সফটওয়ার এজেন্ট, নলেজ ম্যানেজমেন্টে অন্টলজি ব্যবহৃত হয়।

    যত বেশি ওন্টলোজি তৈরি হবে, সেসব ওন্টলোজি যত বেশি বড় হবে, এবং তাদের যত বেশি বোধগম্য হিসেবে উপস্থাপন করা হবে, তত বেশি স্বয়ংক্রিয় ওন্টলোজি তৈরি ও ব্যবস্থাপনা পদ্ধতি প্রয়োজন হবে।  আমাদের ল্যাবে, ডাটা মাইনিং ব্যবহার করে ডকুমেন্ট থেকে স্বয়ংক্রিয় ওন্টলোজি তৈরি ও ব্যবস্থাপনা পদ্ধতি নিয়ে আমরা কাজ করছি।

    Latest comments

    image